Barisal Report .Com । বরিশাল রিপোর্ট .কম

ঢাকা, ২৪শে মে, ২০১৯ ইং


প্রকাশ : মে ২, ২০১৯ , ৬:১২ অপরাহ্ণ
ঘূর্ণিঝড় ফণী মোকাবেলায় পটুয়াখালীতে প্রস্তুত ১১১টি মেডিকেল টিম

অনলাইন ডেস্ক// বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ উপকূলের খুব কাছাকাছি চলে আসায় দ্বিতীয় দফায় পটুয়াখালীতে দুর্যোগ প্রস্তুতি নিয়ে জরুরি সভা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় জেলা প্রশাসকের দরবার হলে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় পটুয়াখালী শেখ হাসিনা সেনা নিবাসের মেজর আতাউর বলেন, ঘূর্ণিঝড় ফণী উপকূলে আঘাত হানলে শেখ হাসিনা সেনা নিবাসের ৫০০ সেনা সদস্য উদ্ধার কাজে অংশগ্রহণ করবে।

পটুয়াখালী নদী বন্দরের সহকারী পরিচালক খাজা সাদিকুর রহমান বলেন, ঘূর্ণিঝড় ফণীকে কেন্দ্র করে উপকূলীয় এলাকার অভ্যন্তরীণ ও ঢাকাগামী ডাবল ডেকার লঞ্চসহ সকল নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

সভায় জেলা প্রশাসক মো. মতিউল ইসলাম চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. হেমায়েত উদ্দিন, পুলিশ সুপার মইনুল হাসান, শেখ হাসিনা সেনা নিবাসের মেজর আতাউর, পটুয়াখালী নদী বন্দরের সহকারী পরিচালক খাজা সাদিকুর রহমানসহ জেলা প্রশাসন ও সকল দফতরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসক মো. মতিউল ইসলাম চৌধুরী জানান, ঘূর্ণিঝড় ফণী মোকাবেলায় রেডক্রিসেন্টের একাধিক টিম, ফায়ার সার্ভিসের একাধিক টিম, স্কাউটের একাধিক টিম ও বিভিন্ন সেচ্ছাসেবকরা প্রস্তুত রয়েছে। জেলায় ১১১টি মেডিকেল টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছে, এছাড়া হাসপাতালে ওষুধ রিজার্ভ রাখা হয়েছে। ১৪ হাজার ৮৮৩ মেট্রিকটন চাল, নগদ অর্থ ১০ লাখ টাকা, ২ হাজার ৫০০ প্যাকেট শুকনো খাবার এবং প্রয়োজনে চর অঞ্চলে ব্যবহারের জন্য যানবাহন বিশেষ করে নৌযান প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ৩৫১টি সাইক্লোন শেল্টারসহ সকল আশ্রয় কেন্দ্র খোলা রাখা হয়েছে। বিভিন্ন মসজিদে মাইকিং করা হচ্ছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষে একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। জরুরি প্রয়োজনে জেলা প্রশাসনের কন্ট্রোল রুম ০১৩১৭৩৬৫১১৩ ও ০৪৪-১৬২৩৯৪ এবং পুলিশ কন্ট্রোল রুম ০১৭৫২-৬০২৬৪৬ নম্বরে যোগাযোগ করা যাবে।

তিনি আরও জানান, সাইক্লোন শেল্টারের নিরাপত্তার জন্য ইউনিয়ন পর্যায়ে যে সকল গ্রাম পুলিশ রয়েছে তাদেরও প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সমুদ্র বন্দরে ৮ নং সর্তকতা সংকেত হলে দুর্গম চরের মানুষদের উদ্ধার তৎপরতা শুরু করা হবে।

উল্লেখ্য, ঘূর্ণিঝড় ফণী আগামীকাল শুক্রবার (৩ মে) ভারতের ওড়িশা হয়ে বাংলাদেশে আঘাত হানতে পারে। এ জন্য উপকূলীয় ১৯ জেলার সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সব ধরনের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
[tabs]