বৃহস্পতিবার, ২৪ Jun ২০২১, ০৩:৫৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
সংরক্ষিত এমপি মিরা ও ছাত্রলীগ নেতা ফোরকানকে বানারীপাড়ায় আওয়ামী লীগের অবাঞ্চিত ঘোষণা নগরীতে ট্রাকের চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত গৌরনদীতে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধির মুক্তির দাবিতে থানা ঘেরাও মানুষ নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে সুখে-শান্তিতে বসবাস করছেন- আ.স.ম. ফিরোজ কুয়াকাটায় কিশোরীকে ধর্ষন চেষ্টায়  থানায় মামলা। মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রালয় কর্তৃক নারী অফিসারদের অসম্মান করার প্রতিবাদে বরিশালে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। বরিশালে ডিপিএড প্রশিক্ষণার্থী শিক্ষকদের বকেয়া টাকা পাওয়ার দাবীতে মানববন্ধন। বরিশালে বঙ্গবন্ধুর মূরালে পূস্পর্ঘ অর্পণের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন। খুলনা বিভাগে করোনায় রেকর্ড ৩২ জনের মৃত্যু বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
প্রথম দিনের লকডাউন ঢিলেঢালা ভাবে চলছে বরিশালের

প্রথম দিনের লকডাউন ঢিলেঢালা ভাবে চলছে বরিশালের

বরিশাল রিপোর্টঃ বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করতে এক সপ্তাহের জন্য লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। লকডাউনের প্রথম দিনে  বরিশালের কোথাও এর প্রভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে না। শুধু মাত্র সীমিত গণপরিবহন চলাচল ছাড়া সবকিছুই ছিল অনেকটা স্বাভাবিক।

তবে যানজট ছিল কম। অন্যদিকে মহানগরীর অলিগলিগুলো যেন ছিল আরও জমজমাট। সেখানে ইচ্ছেমতো লোকজন ঘোরাফেরা করছে। নিত্যপণ্যের দোকান ছাড়াও সব ধরনের দোকান-পাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা ছিল। যদিও সন্ধ্যার সাথে সাথে বন্ধ হয়ে যায় অধিকাংশ দোকানপাট। তবে তা ছিল কেবল বাণিজ্যিক এবং ব্যস্ত এলাকা কেন্দ্রিক।

ছিল মাস্ক ছাড়া চলাচল। ভিড় দেখা গেছে বিনোদন স্পটগুলোতেও। চায়ের দোকানগুলোতে আড্ডা ছিল জমজমাট।

সদর রোড এর ছবি।

তবে রাতে গরাবার সাথে সাথে কিছুটা হলেও লকডাউনের প্রভাব দেখা গেছে। অন্যদিকে জেলা প্রশাসনের সচেতনতামূলক প্রচার গাড়ির নির্দেশনায় সন্ধ্যার আগেই বন্ধ হয়ে যায় অধিকাংশ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান।

সোমবার (৫ এপ্রিল) নগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, সকাল ৬টায় লকডাউনের শুরু থেকেই ছিল সীমিত। তবে অটোরিকশা, সিএনজি ও রিকশা চলেছে রাস্তায়। আর মোটরসাইকেল চলেছে অবাধে।

 

 

 

 

 

 

তালতলী বাজারের ছবি।

এদিকে অফিসচলাকালীন যানজট ছিল কোথাও কোথও। বাজার গুলোতে ছিল বেশ ভিড়। এসময় আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর তেমন কোনো তৎপরতা লক্ষ্য করা যায়নি।

তবে ৬টার পর সব কিছু বন্ধা থাকার কথা থাকলেও তা কেউ মানতে নারাজ কিছু এলাকা ঘুরে দেখা যায় সন্ধা আট্টার পরও তাদের দোকান পাট খোলা দেখা যায় সদর রোড, বাজার রোড, ফকির বাড়ি রোড, বেলতলা বাজার, বৌবৈাজার, পলাশ পুর, তালতলী, ভাটি খানা, এমনকি কিছু কিছু ওয়ার্ড কমিশনার কার্যলায়ও খোলা থাকেতে দেখা যায়।

Please Share This Post in Your Social Media




পুরাতন খবর

DEVELOP BY SJ WEB HOST BD
Design By Rana