বৃহস্পতিবার, ২৪ Jun ২০২১, ০২:৪৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
সংরক্ষিত এমপি মিরা ও ছাত্রলীগ নেতা ফোরকানকে বানারীপাড়ায় আওয়ামী লীগের অবাঞ্চিত ঘোষণা নগরীতে ট্রাকের চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত গৌরনদীতে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধির মুক্তির দাবিতে থানা ঘেরাও মানুষ নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে সুখে-শান্তিতে বসবাস করছেন- আ.স.ম. ফিরোজ কুয়াকাটায় কিশোরীকে ধর্ষন চেষ্টায়  থানায় মামলা। মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রালয় কর্তৃক নারী অফিসারদের অসম্মান করার প্রতিবাদে বরিশালে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। বরিশালে ডিপিএড প্রশিক্ষণার্থী শিক্ষকদের বকেয়া টাকা পাওয়ার দাবীতে মানববন্ধন। বরিশালে বঙ্গবন্ধুর মূরালে পূস্পর্ঘ অর্পণের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন। খুলনা বিভাগে করোনায় রেকর্ড ৩২ জনের মৃত্যু বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
গরমের তীব্র প্রকোপ বরিশালে বাড়ছে ডায়রিয়ার সংখ্যা

গরমের তীব্র প্রকোপ বরিশালে বাড়ছে ডায়রিয়ার সংখ্যা

বরিশাল রিপোর্টঃ বরিশালে গরমের তীব্রতা প্রকোপ বেড়েছে  ডায়রিয়ার  । নগরীর দুটি সরকারি হাসপাতালে হিমসিম খাচ্ছে  কর্মরত নার্সরা। সরোজমিনে দেখা যায় খোলা আকাশের নিচে, গাছের সাথে সেলাইন ঝুলিয়ে সেবা নিচ্ছে ডাইরিয়ায় আক্রন্ত রোগীরা। নেই পর্যাপ্ত বেডের সংখ্যা। একারনে গাছের তলায়, সিরির নিচে,হাসপাতালের মেঝেতে ঠাই হয়েছে রোগীদের। এদিকে রোগির সস্বজনরা বলছে হাসপাতাল থেকে পাওয়া যাচ্ছেনা পর্যাপ্ত ঔষধ ও স্যালাইন।

প্রতিদিন গড়ে ২৪ থেকে ২৭জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হচ্ছে। তাদের মধ্যে শিশুর সংখ্যা বেশি।

তীব্র স্যালাইন সংকটে বরিশাল জেনারেল হাসপাতালের ডায়রিয়া ওয়ার্ডে রোগীদের চিকিৎসা সেবা বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে।

মধ্য ও উচ্চবিত্ত রোগীরা হাসপাতালের বাইরে থেকে স্যালাইন কিনে চিকিৎসা করলেও বিপাকে পড়ছেন দরিদ্র রোগীরা।

বরিশাল সিভিল সার্জন ডা. মনোয়ার হোসেন স্যালাইন সংকটের কথা স্বীকার করে জানান, ইতিমধ্যে ঢাকায় স্যালাইন চেয়ে চাহিদাপত্র পাঠানো হয়েছে।

সূত্র মতে, বরিশাল সদর জেনারেল হাসপাতালে প্রতিদিনই ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগী ভর্তি হচ্ছে। প্রতিদিন গড়ে ১৫ জন ডায়রিয়ার রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মলয় কৃষ্ণ বড়াল জানান, ডায়রিয়া ওয়ার্ডে শয্যা মাত্র ৪টি (পুরুষ দুই ও নারী দুই)।

গত কয়েক দিনের গড়ে ১৫ থেকে ২০ জনের বেশি ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। ফলে হাসপাতালের মেঝেতে রেখে রোগীদের চিকিৎসাসেবা দিতে হচ্ছে। প্রতিদিন অর্ধশতাধিক ডায়রিয়ার রোগী বহির্বিভাগে ব্যবস্থাপত্র নিচ্ছেন।

হাসপাতালের কর্মরত নার্সরা জানান, বর্তমানে হাসপাতালে স্যালাইন একেবারেই নেই। তাই বাধ্য হয়ে মধ্য ও উচ্চবিত্ত রোগীরা বাইরে থেকে স্যালাইন কিনে চিকিৎসা নিচ্ছেন। কিন্তু হাসপাতালে এসে স্যালাইন না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়ছেন দরিদ্র রোগীরা।

ডা. মলয় কৃষ্ণ বড়াল বলেন, ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় হাসপাতালে প্রচুর আইভি স্যালাইন সংকট দেখা দিয়েছে।

 

আইভি স্যালাইন নিয়ে কোনো বাজেট নেই। মজুদও শূন্যের কোঠায়। বরিশাল সিভিল সার্জন ডা. মনোয়ার হোসেন জানান, বছরে তাদের যে স্যালাইন বরাদ্দ দেয়া হয় তাতে ৩-৪ মাস চলে।

এখন গরমে ডায়রিয়ার প্রকোপ চলছে। তাই পরিচালকের মাধ্যমে ইতিমধ্যে স্যালাইনের চাহিদাপত্র স্বাস্থ্য অধিদফতরে পাঠানো হয়েছে।

সূত্রে জানা গেছে বরিশাল সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পর্যায়ের ক্লিনিক ও পল্লি চিকিৎসকদের কাছ থেকে প্রতিদিন অনেক রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন।

তবে কেউ কেউ করোনাকে ভয় করে বরিশালে চিকিৎসা নিতে আসছেন না। এদিকে বরিশাল সদর উপজেলা চন্দ্রমোহন ইউনিয়নের এক ইউপি সদস্য জানান, তাদের ইউনিয়নে প্রায় কয়েকশত লোক ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে। তারা সবাই স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

Please Share This Post in Your Social Media




পুরাতন খবর

DEVELOP BY SJ WEB HOST BD
Design By Rana