মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৫:১৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ইউপি নির্বাচন : বাবুগঞ্জে ৫২ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল দশমিনায় মা’কে কু-প্রস্তাব দিয়ে শ্লীলতাহানি, বাধা দেয়ায় মা-ছেলেকে কুপিয়ে জখম চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে ভোটযুদ্ধে রিপন হাওলাদার-মারুফ-চাঁন স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে চিত্রাঙ্কনে বরিশাল বিভাগে প্রথম মোস্তফা দেশে নির্বাচন কমিশন শাক্তিশালী না হলে একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র গঠন করা সম্ভব হবে না-হানিফ বাংলাদেশী। বরিশালে ছাত্র ফেডারেশনের বিক্ষোভ সমাবেশ বেগম জিয়ার সু-চিকিৎসার দাবিতে বরিশালে বিক্ষোভ বরিশালের দুই উপজেলায় ১০ বহিরাগত আটক, একজনের দন্ড বরিশাল বিভাগের বিভিন্ন ভোট কেন্দ্র পরিদর্শনে বিভাগীয় কমিশনার ও রেঞ্জ ডিআইজি বরিশালের রহমতপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ইভিএম দেখে ভোটাররা বিভ্রান্তির পড়ে – যেখানে, সেখানে বাটন চেপেছে রামনাবাদ নদীর ধারে ওড়নায় পেচানো নবজাতকের মরদেহ
কলাপাড়ায় প্রভাবশালীর দখলে খাল, ২ হাজার একর ফসলী জমি অনাবাদী, কৃষকরা চরম ভোগান্তিতে

কলাপাড়ায় প্রভাবশালীর দখলে খাল, ২ হাজার একর ফসলী জমি অনাবাদী, কৃষকরা চরম ভোগান্তিতে

কুয়াকাটা(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: কলাপাড়ায় ধানখালী ইউনিয়নের পাঁচজুনিয়া গ্রামে বিস্তীর্ণ ফসলী মাঠের পানি নিস্কাশনের বিকল্প হিসেবে সরকারি রাস্তার ওপর ছিলো একটি মাত্র কালভার্ট।

আলমগীর হাওলাদার ও মোক্তার হোসেন নামের দুই প্রভাবশালীর দখলে মাটির নিচে তাও বিলিন হয়ে গেছে বহু আগে।

চলমান মৌসুমে দুথহাজার একর জমির বৃষ্টির পানি নিষ্কাশন না হওয়ায় সৃষ্টি হয়েছে স্থায়ী জলাবদ্ধতা।

এরফলে এবছরও পতিত হয়ে পরে আছে এসব তিন ফসলী জমি। দীর্ঘ চার কিলোমিটার সরকারি খালে কোন ধরনের অনুমোদন কিংবা বন্দোবস্ত না নিয়েইে তৈরি করা হয়েছে ১৬ টি মাছের ঘের। রেকর্ডীয় সম্পত্তির মুখশা দাবিতে দখল করে নিয়েছে স্থানীয় ১১ প্রভাবশালী।

ফলে কৃষিতে পানি নিষ্কাশন প্রতিবন্ধকতায় দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে অনাবদী থাকছে প্রায় দুথহাজার একর তিন ফসলী জমি। ভুক্তভোগী চাষীরা বলছেন সংশ্লিষ্ট কর্তাদের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও মিলছে না কোন প্রতিকার। নেয়া হয়নি প্রভাশালীদের বিরুদ্ধে কোন আইনি ব্যবস্থা ।
সরেজমিনে গিয়ে ঘুরে দেখা যায় , কোমর সমান জলাবদ্ধতার কারনে আমন মৌসুমের এ সময়ে বীজ তৈরি ও রোপন করতে পারেননি ওই এলাকার কৃষকরা। কৃষকদের অভিযোগ প্রভাবশালী শহীদ হাওলাদার, খলীল মুন্সী, স্বপন হাওলাদার, জাহিদ মৃধা, জহিরুল মুন্সী, হাসান হাওলাদার একটি করে এবং আলমগীর হাওলাদার, ওহাব মৃধা, আফজাল হাওলাদার, আনছার উদ্দিন মোল্লা ও রিয়াজ মোল্লা দুথটি করে ঘের তৈরি করে পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা বন্ধ করে দিয়েছে।
কৃষক জাহাঙ্গীর আলম মৃধা এ প্রতিনিধিকে জানায়, প্রায় দেড় একর জমির মালিক তিনি । জলাবদ্ধতার কারনে গত বর্ষা মৌসুমে নষ্ট হয়ে গেছে তার ক্ষেতের ধান। আরেক কৃষক হাবিবুর রহমান বলেন, তার সাড়ে ৫ একর জমিতে চাষাবাদ করতে পারবেন কিনা তা নিয়ে রয়েছে সংশয়। আরেক কৃষক শাহাবুদ্দিন হাওলাদার বলেন, তার চার একর জমির মৌসুমি ধান জলাবদ্ধতার কারনে সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে গেছে।
এবিষয়ে অভিযুক্ত রিয়াজ মোল্লা গনমাধ্যমকে বলেন, ২৫ বছর আগে থেকেই এই ঘের করা হয়েছে। গত বর্ষা মৌসুমে পাঁচজুনিয়া সরকারি রাস্তার ওপর পানি নিস্কাশনের জন্য চেয়ারম্যান পাইপ বসিয়ে দিয়েছিলেন। সেখানে আলমগীর হাওলাদার ও মোক্তার হোসেন মাটি কেটে ভরাট করে দিয়েছে। এ কারনে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে।
কলাপাড়া উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদুল হক সাংবাদিকদের জানায়, এ বিষয়টি নিয়ে কৃষকদের অভিযোগ পেয়েছি। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে বলা হয়েছে, দ্রুত সময়ের মধ্যে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করতে এবং আমি নিজে গিয়ে ওই খালটি উদ্ধারে ব্যবস্থা গ্রহন করছি।

Please Share This Post in Your Social Media




পুরাতন খবর

DEVELOP BY SJ WEB HOST BD
Design By Rana