শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:১৪ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বরিশালে সড়ক দুর্ঘটনায় ঝড়ে গেলো  তিন শিক্ষার্থীর প্রাণ আইপিডিজি ডিস্ট্রিক গভর্নরকে  ফুলেল শুভেচ্ছা জানান রোটারি ক্লাব অব বরিশালের সভাপতি পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় অবৈধ ভাবে মাটি কাটার দায়ে ৩ লাখ টাকা জরিমানা। কলাপাড়ায় সার সরবরাহে সঙ্কট,দিশেহারা কৃষকসহ ডিলাররা। মহান শিক্ষা দিবস উপলক্ষে বরিশালে ছাত্র সমাবেশ বরিশালে কলেজছাত্র হত্যা মামলায় ২ আসামিকে ফাঁসি, ৪ জনের যাবজ্জীবন র্কীতনখোলা নদীর তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ পায়রা সেতু দক্ষিনাঞ্চলে মানুষের জন্য আরেকটি পদ্মা সেতুর মতো-ওবায়দুল কাদের বরিশালে শেবাচিমে ডিজিও বিভাগ চালু মেহেন্দীগঞ্জে ছেলের হাতে আটক বৃদ্ধা মাকে উদ্ধারে ব্যর্থ জনপ্রতিনিধি
নগরীর গোরস্তান রোডে সীমানা প্রাচীর ভেঙে প্রকাশ্যে জমি দখলের চেষ্টা

নগরীর গোরস্তান রোডে সীমানা প্রাচীর ভেঙে প্রকাশ্যে জমি দখলের চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ভাগ্নের পর এবার জমি দখলের মিশন শুরু করেছে মামা ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী। আজ সোমবার দুপুরে নগরীর মুসলিম গোরস্তান রোডে পন্ডিত বাড়ীর সীমানায় কাটা তারের বেড়া এবং ছাগলের খামারের দেয়াল ভেঙ্গে প্রকাশ্যে জমি দখল করছে আকতারুজ্জামান লিটন এবং তার সন্ত্রাসী বাহিনী ।

 

এর আগে ১ আগস্ট জমি দখলের মিশন শুরু করে আকতারুজ্জামানের ভাগ্নে শাহরিয়ার মো. সালাউদ্দিন ওরফে সাদি। এ সময় মিথ্যে মারধরের অভিযোগ এনে জমির অপর মালিক (অংশীদার) শাহরিয়ার সাচিব রাজিবের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।

 

এ বিষয়ে দৈনিক পরিবর্তনে গত ১৫ আগস্ট একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। মূলত এর পরই ক্ষিপ্ত হয় ওই চক্রটি। জমি দখলে নিতে পরিকল্পনা করতে শুরু করে তারা আজ সোমবার সকালে মামা ভাগ্নে মিলে জমি দখলের পুরো ছক করে। পন্ডিত বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে সীমানা প্রাচীর ভেঙে জমি দখলের চেষ্টা করে। দুপুর ৩ টা নাগাদ খবর পেয়ে জমির অংশীদার শাহিনা আজমিন ঘটনাস্থলে পৌছুলে আকতারুজ্জামান ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী তার উপর চড়াও হয়। এক পর্যায়ে সাংবাদিক ও থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে হাজির হলে ভাড়া করা সন্ত্রাসী বাহিনী দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ সীমানা প্রাচীর ভাঙার অপরাধে আকতারুজ্জামানকে নিষেধ করে উভয় পক্ষকে কাগজপত্রসহ থানায় আসার জন্য নির্দেশনা প্রদান করে।

 

এব্যাপারে শাহীনা আজমীন বলেন, নগরীর ২১ নং ওয়ার্ডের মুসলিম গোরস্তান রোডের পন্ডিত বাড়ীর জমিতে পথের অধিকার চেয়ে মালিক মো. নজরুল ইসলাম মিয়াদের বিরুদ্ধে ২০০৩ সালে মামলা করেন আকরাজ্জামান লিটনের ভাই আবদুল হালিম। মামলা চলার এক পর্যায়ে জালিয়াতি করে আবদুল হালিম ৩৫ শতাংশ জমির মালিক হওয়ার ঘটনা প্রকাশ হয়ে পড়ার ভয়ে মামলা থেকে কৌশলে সরে যান তারা। তাদের এই অনুপস্থিতির কারণে ২০১৪ সালে মামলাটি খারিজ হয়ে যায়। এর পর থেকে তারা বিভিন্ন উপায়ে বিবাদীদের হয়রানি করে জমি দখল নিতে বাধা দিয়ে আসছিলো।

 

গত ২০২০ সালে আবদুল হালিম পন্ডিত বাড়ীর জমিতে পথের দাবিতে চিরস্থাায়ী নিষেধাজ্ঞার ডিক্রির আবেদন জানিয়ে আবার বরিশাল সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মামলা করেন। এই মামলা চলমান রয়েছে।

 

Please Share This Post in Your Social Media




পুরাতন খবর

DEVELOP BY SJ WEB HOST BD
Design By Rana