শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:২৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বরিশালে সড়ক দুর্ঘটনায় ঝড়ে গেলো  তিন শিক্ষার্থীর প্রাণ আইপিডিজি ডিস্ট্রিক গভর্নরকে  ফুলেল শুভেচ্ছা জানান রোটারি ক্লাব অব বরিশালের সভাপতি পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় অবৈধ ভাবে মাটি কাটার দায়ে ৩ লাখ টাকা জরিমানা। কলাপাড়ায় সার সরবরাহে সঙ্কট,দিশেহারা কৃষকসহ ডিলাররা। মহান শিক্ষা দিবস উপলক্ষে বরিশালে ছাত্র সমাবেশ বরিশালে কলেজছাত্র হত্যা মামলায় ২ আসামিকে ফাঁসি, ৪ জনের যাবজ্জীবন র্কীতনখোলা নদীর তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ পায়রা সেতু দক্ষিনাঞ্চলে মানুষের জন্য আরেকটি পদ্মা সেতুর মতো-ওবায়দুল কাদের বরিশালে শেবাচিমে ডিজিও বিভাগ চালু মেহেন্দীগঞ্জে ছেলের হাতে আটক বৃদ্ধা মাকে উদ্ধারে ব্যর্থ জনপ্রতিনিধি
বরিশালে কলেজছাত্র হত্যা মামলায় ২ আসামিকে ফাঁসি, ৪ জনের যাবজ্জীবন

বরিশালে কলেজছাত্র হত্যা মামলায় ২ আসামিকে ফাঁসি, ৪ জনের যাবজ্জীবন

শামীম আহমেদ: বরিশালে কলেজছাত্র সোহাগ সেরনিয়াবাতকে হত্যার সাত বছর পর মামলার দুই আসামির মৃত্যুদ- ও চারজনের যাবজ্জীবন কারাদ- দিয়েছে আদালত। অপরাধ প্রমাণ না হওয়ায় ১০ জনকে খালাস দিয়েছেন বিচারক। বরিশালের জননিরাপত্তা বিঘœকারী অপরাধ দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক টি এম মুসা আজ (১৫ই) সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুরে আসামিদের উপস্থিতিতে এই রায় দেন।

 

মৃত্যুদ- পাওয়া আসামিরা হলেন জিয়াউল হক লালন ও রিয়াদ সরদার। আসামি মামুন, ইমরান, বিপ্লব ও ওয়াসিম সরদারকে যাবজ্জীবন কারাদ- দেয়া হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদী পক্ষের আইনজীবী এটিএম আনিসুর রহমান ও পিপি এ্যাড, লস্কর নুরুল হক।

 

তিনি জানান, নিহত সোহাগ ছিলেন বরিশালের উজিরপুরের পৌর এলাকার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা। স্থানীয় একটি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন। এলাকায় তার একটি পোশাকের দোকানও ছিল। ২০১৪ সালের ৪ সেপ্টেম্বর রাতে আসামিরা উজিরপুরের রাখালতলা এলাকায় সোহাগকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে।

 

এর আগে বিভিন্ন সময় সোহাগের কাছ থেকে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন আসামিরা। তা না পাওয়ার সোহাগের দোকানে ভাঙচুরও চালানো হয়। এর জেরেই সোহাগকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের মামা খোরশেদ আলম ১৩ জনকে আসামি করে উজিরপুর থানায় মামলা করেন। একে একে গ্রেপ্তার করা হয় আসামিদের।

 

তদন্ত শেষে পুলিশ সে বছরের ২২ নভেম্বর অভিযোগপত্র জমা দেয়। ৩১ জন সাক্ষী সাক্ষ্য এবং প্রমাণ ও আলামত বিবেচনায় বিচারক এই রায় দিয়েছেন বলে জানান আইনজীবী। নিহতের বাবা ফারুক হোসেন সেরনিয়াবাত বলেন, ‘রায়ে আমরা সন্তুষ্ট।

 

তবে যারা বেকসুর খালাস পেয়েছেন তারাও হত্যায় জড়িত ছিলেন। রায়ের পূর্ণাঙ্গ আদেশের কপি পেলে তা নিয়ে আমি উচ্চ আদালতে আপিল করবো। আশা করি হত্যায় জড়িত থাকার অপরাধে উচ্চ আদালত তাদের শাস্তি দিবে।’

 

নিহতের মা শাহনাজ পারভীন বলেন, ‘রায়ে খুশি হয়েছি। তবে খালাসপ্রাপ্ত ১০ জনের সাজা দিলে আরও ভালো হতো। তারাও আমার ছেলের হত্যায় জড়িত ছিল।’ বাদীর আইনজীবী আনিসুর রহমান বলেন, ‘অপরাধ করলে শাস্তি পেতেই হবে, যা এই রায়ের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে।’

Please Share This Post in Your Social Media




পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
DEVELOP BY SJ WEB HOST BD
Design By Rana